• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ০৬ জানুয়ারি ২০২১ ১১:০০:৫০
  • ০৬ জানুয়ারি ২০২১ ১১:০০:৫০
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

বগুড়ায় দুই স্কুল থেকে জিয়ার নাম বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত বহাল

এই বিদ্যালয়টির নাম পরিবর্তন করে করা হয়েছে সুখানপুকুর বন্দর গার্লস হাই স্কুল। ছবি : সংগৃহীত

বগুড়া গাবতলী উপজেলার দুটি স্কুল থেকে শহীদ জিয়াউর রহমানের নাম বাদ দেওয়া সংক্রান্ত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আদেশ স্থগিত করে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত।

৮ সপ্তাহের জন্য এই স্থগিতাদেশ দেওয়া হয়েছে।এর ফলে বগুড়া গাবতলী উপজেলার দুটি স্কুল থেকে ‘শহীদ জিয়াউর রহমান’র নাম বাদ দিয়ে সরকারের সিদ্ধান্ত বহাল রয়েছে বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান ননী এই আদেশ দেন। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়।

এর আগে গত ২৮ ডিসেম্বর বগুড়া গাবতলী উপজেলার দুটি স্কুল থেকে শহীদ জিয়াউর রহমানের নাম বাদ দেওয়া সংক্রান্ত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আদেশ ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে স্কুল দুটিতে জিয়াউর রহমানের নাম পুনঃস্থাপনের কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না জানতে চেয়ে রুল জারি করেন আদালত।

একটি স্কুল হলো—শহীদ জিয়াউর রহমান গার্লস হাই স্কুল, যা পরিবর্তন করে করা হয়েছে সুখানপুকুর বন্দর গার্লস হাই স্কুল। অপরটি হলো—গাবতলী শহীদ জিয়া হাই স্কুল, যা পরে হয় গাবতলী পূর্বপাড়া হাই স্কুল। পরে এই আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ।

জানা যায়, গত ১৯ এপ্রিল শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. কামরুল হাসান স্কুল দুটির নাম পরিবর্তন করতে আদেশ দিয়েছিলেন। পরে এ আদেশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট দায়ের করা হয়।

রিটকারী আইনজীবী ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল বলেন, ‘২০০০ সালে প্রথম স্কুলটি শহীদ জিয়া হাই স্কুল নামে প্রতিষ্ঠিত হয়। স্কুলের সব কা‌র্যক্রম সেই নামেই পরিচালিত হয়ে আসছিল। কিন্তু চলতি বছরের ১৯ এপ্রিল এই নামটি পরিবর্তন করা হয় কোনো কারণ উল্লেখ ছাড়াই।’

একইভাবে ১৯৯৬ সালে গাবতলী শহীদ জিয়া হাই স্কুল নামে স্কুলটি প্রতিষ্ঠা করা হয় এবং এই নামেই স্কুলের সব কাজ পরিচালিত হয়ে আসছিলো। কিন্তু সেটিও চলতি বছরের ১৯ এপ্রিল পরিবর্তন করা হয়। পরে এই এ বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করেই রিট দায়ের করা হয় বলেও জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0862 seconds.