• বিদেশ ডেস্ক
  • ০৭ জানুয়ারি ২০২১ ১০:০১:২৮
  • ০৭ জানুয়ারি ২০২১ ১২:০৩:৩০
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

মার্কিন পার্লামেন্টে ট্রাম্প-সমর্থকদের নজিরবিহীন তাণ্ডব

ছবি : সংগৃহীত

বিদায়ী মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের উগ্র সমর্থকরা দেশটির রাজধানী ওয়াশিংটনের ক্যাপিটল হিলে অবস্থিত পার্লামেন্টে নজিরবিহীন তাণ্ডব চালিয়েছে। কংগ্রেস অধিবেশন চলার মধ্যেই পুলিশি বাধা ভেঙে ভেতরে ঢুকে পড়ে শত শত ট্রাম্প সমর্থক।

গতকাল ৬ জানুয়ারি, বুধবার কংগ্রেস অধিবেশনের বিরোধিতা করে ট্রাম্পের কয়েক হাজার উগ্র ট্রাম্প সমর্থক ওয়াশিংটনে জড়ো হন। সমর্থকদের সেই সমাবেশে নভেম্বরের নির্বাচনের পরাজয় মেনে না নিয়ে জো বাইডেনের বিজয় অনুমোদন দেয়ার বিরুদ্ধে আবারো বক্তব্য দেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত জো বাইডেনের জয় অনুমোদনের জন্য এসময় কংগ্রেসের অধিবেশন চলছিল। হঠাৎই নিরাপত্তা বেষ্টনি ভেঙে হঠাৎ করেই সিনেট ভবনে ঢুকে পড়ে ট্রাম্পের সমর্থকরা। তারা সেখানে নজিরবিহীন তাণ্ডব চালায়।

এরই মধ্যে পুলিশ ভেতরে অবস্থানরত আইনপ্রণেতাদের বের করে আনে। পার্লামেন্টের অধিবেশন স্থগিত হয়ে যায়।

পরে আরো তিন ঘণ্টা পর ট্রাম্প সমর্থকদের ভেতর থেকে বের করে দেয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। তবে এরই মধ্যে ক্যাপিটল হিলের দরজা-জানালা ভাংচুর করে ট্রাম্প সমর্থকরা। তাদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদুনে গ্যাস ও পেপার স্প্রে ব্যবহার করে পুলিশ।

এরপর রাত ৮টায় ফের শুরু হয় অধিবেশন। এ সময় ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকান দুই দলের আইনপ্রণেতারাই ট্রাম্প ও তার সমর্থকদের কড়া সমালোচনা করেন।

এই হামলাকে মার্কিন গণতন্ত্রের ওপর চরম আঘাত হিসেবে উল্লেখ করেন তারা। আইনপ্রণেতারা দ্রুত হামলাকারীদের শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানান। চাপের মুখে টুইটারে দেয়া ভিডিও বার্তায় সমর্থকদের ঘরে ফেরার আহ্বান জানিয়েছেন ট্রাম্প।

বিদায়ী উপ-রাষ্ট্রপতি মাইক পেন্স এসময় বলেন, ‘যারা আজ আমাদের ক্যাপিটলে তাণ্ডব চালিয়েছে, আপনারা জয়ী হননি।’ তিনি সকলকে আবার নতুন করে কাজ শুরু করার আহ্বান জানান।

এই ঘটনাকে দুঃখজনক উল্লেখ করে এমন ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন নবনির্বাচিত রাষ্ট্রপতি জো বাইডেন। তিনি এই ঘটনাকে বিক্ষোভ নয়, ‘সন্ত্রাসী কার্যক্রম’ হিসেবে উল্লেখ করেন।

ওয়াশিংটন পুলিশ জানিয়েছে, হামলা-সংঘর্ষের সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে একজন নারীর মৃত্যু হয়েছে। আর দুটি সন্দেহভাজন বিস্ফোরক ডিভাইস নিষ্ক্রিয় করার তথ্য জানিয়েছে এফবিআই।

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে প্রকাশিত ছবিতে মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকারের চেয়ারে এক ভ্যাগাবন্ডকে বসে থাকতে দেখা যায়। এছাড়া আরেকজনকে দেখা যায়, সংসদের মাইক্রোফোন তুলে নিয়ে যেতে। গরুর সিং পরা সাজে এক ব্যক্তিকে সাংসদদের আসনে বসে থাকতে দেখা যায়। এছাড়া পার্লামেন্ট ভবনের দেয়াল বেয়ে মই দিয়ে বেয়ে উঠতেও দেখা যায় অনেককে।

সংঘর্ষের পর ১২ ঘণ্টার জন্য ওয়াশিংটনে কারফিউ ঘোষণা করেন শহরটির মেয়র মুরিয়েল বাউসার। এক টুইট বার্তায় তিনি জানান, স্থানীয় সময় বুধবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার ভোর ৬টা পর্যন্ত এই কারফিউ বলবৎ থাকবে।

এমনকি ওয়াশিংটন ডিসিতে সকল ধরনের যানবাহন চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সেখানকার আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অতিরিক্ত সাহায্য চাওয়ার পর ক্যাপিটাল হিলে নামানো হয় সেনাবাহিনী।

প্রসঙ্গত যে,  ২০০ বছরের বেশি সময় পর এই প্রথমবারের মতো বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতির মুখে পড়লো ক্যাপিটল হিল। সবশেষ ১৮১৪ সালে যুক্তরাজ্য-যুক্তরাষ্ট্র যুদ্ধের সময় সেখানে আগুন ধরিয়ে দিয়েছিল ব্রিটিশ সেনাবাহিনী।

বাংলা/এসএ/

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0937 seconds.