• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১১ জানুয়ারি ২০২১ ১৯:৫৭:৩৫
  • ১২ জানুয়ারি ২০২১ ০৭:৫৯:১০
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

‘দেশে ভ্যাকসিনের নিবন্ধন শুরু ২৬ জানুয়ারি’

ছবি : সংগৃহীত

আগামী ২৬ জানুয়ারি থেকে দেশে করোনার (কোভিড-১৯) ভ্যাকসিনের জন্য নিবন্ধন শুরু হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম। দেশে প্রথম ধাপে ৫০ লাখ মানুষ এই ভ্যাকসিন দেয়া হবে। যার জন্য নিবন্ধন করতে হবে।

১১ জানুয়ারি, সোমবার বিকেলে করোনার ভ্যাকসিন বিষয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এই তথ্য জানান।

এ বিষয়ে মোহাম্মদ খুরশীদ আলম জানান, ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট উৎপাদিত করোনার ভ্যাকসিন আগামী ২১ থেকে ২৫ জানুয়ারির মধ্যে দেশে আসবে। এরপর বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের ওয়ার হাউস থেকে তা বিভিন্ন জেলায় পাঠানো হবে। প্রথম ধাপে ৫০ লাখ মানুষ এই ভ্যাকসিন পাবেন।

তিনি আরো জানান, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা অনুসারে প্রথম মাসে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যারা ভ্যাকসিন পাবেন তাদের তালিকা তৈরি করেছেন দেশি বিশেষজ্ঞরা। ভ্যাকসিন পাওয়ার ক্ষেত্রে সরকারের অগ্রাধিকার তালিকায় রয়েছেন সম্মুখসারির যোদ্ধারা। প্রথম দফায় ভ্যাকসিন দিতে বিভিন্ন খাতের ব্যক্তিদের তালিকাভুক্ত করা হয়েছে।

মহাপরিচালক আরো জানান, ভ্যাকসিন নেয়ার জন্য সরকারের অগ্রাধিকার তালিকার বাইরের সাধারণ মানুষকে নিবন্ধন করতে হবে। আগামী ২৬ জানুয়ারি থেকে ভ্যাকসিনের জন্য নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হবে। এ নিবন্ধন করা যাবে অনলাইনেও। তবে অনলাইনটি এখনো সম্পন্ন হয়নি। জেলা-উপজেলায় ভ্যাকসিন সেন্টারেও এ নিবন্ধন করা যাবে।

ওই সংবাদ সম্মেলনে আরো বলা হয়, নিবন্ধনের জন্য জাতীয় পরিচয়পত্র লাগবে। জাতীয় পরিচয়পত্র ছাড়া নিবন্ধন প্রক্রিয়া সম্ভব নয়। কারণ জাতীয় পরিচয়পত্র ভ্যাকসিন গ্রহণকারীর বয়স যাচাই করা হবে। একইসঙ্গে ভাকসিন নেয়ার পর সনদ দেয়া হবে।

একই সঙ্গে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের হাসপাতালগুলোতে ভ্যাকসিন দেয়ার জন্য আলাদা টিম গঠন করা হচ্ছে। এছাড়াও কয়েকটি বিশেষায়িত হাসপাতালে ভ্যাকসিন পাওয়া যাবে বলেও জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এই মহাপরিচালক।

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0955 seconds.