• ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১০:০৯:০৯
  • ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১০:১০:০৮
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

নিখোঁজের ৫ ঘণ্টা পর বস্তাবন্দি লাশ মিললো শিশুটির!

ছবি : বাংলা


কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি :


তিন বছরের শাফি। বাবা-মায়ের চোখের মণি। ছুটোছুটি আর ভাঙা ভাঙা শব্দে মধুর সব কথায় সারা বাড়িতে তার প্রাণবন্ত বিচরণ বাবা মায়ের সাথে সাথে অন্য সকলের আনন্দের মাত্রা বাড়িয়ে দিতো। কিন্তু গতকাল ৫ ফেব্রুয়ারি, শুক্রবার বিকালে হঠাৎই শাফিকে খুঁজে পাওয়া যচ্ছিল না।

এ সংবাদে শাফির বাড়ির সাথে সাথে পাড়া জুড়েই যেন অন্ধকার নেমে এলো। ছোট্ট এই শিশুটির জন্য তার স্কুলশিক্ষক বাবা আর মাসহ বাড়ির সকলে দিকবিদিক ছুটে বেড়াতে লাগলেন। পাঁচ ঘণ্টার খোঁজাখুঁজি শেষে শাফিকে পাওয়া গেল পাশের একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে। তবে প্রাণবন্ত সেই শাফি তখন প্রাণহীন।

বস্তাবন্দি অবস্থায় শাফিকে যখন তার স্বজন ও এলাকাবাসী খুঁজে পেলেন, তিন বছরের শাফি তখন মৃত। মানুষরূপী নিষ্ঠুর কোনো ঘাতক শিশুটিকে হত্যার পর বস্তাবন্দি করে ফেলে রেখে গেছে। খবর পেয়ে রাত ১১ টার দিকে পুলিশ শিশু শাফির মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের ঝগড়ারচর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শাফি ওই গ্রামের জাহেদুল ইসলামের ছেলে।

রৌমারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোন্তাছের বিল্লাহ এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, শিশুটি নিখোঁজের প্রায় পাঁচ ঘণ্টা পর তাদের বাড়ির পাশের একটি পরিত্যক্ত বাড়ি থেকে বস্তাবন্দি অবস্থায় মরদেহ খুঁজে পায় তার স্বজন ও এলাকাবাসী। পরে পুলিশ গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

তিনি বলেন, ‘শিশুটির গলায় সামান্য দাগ রয়েছে। তার ঠোঁট দুটো অনেকটা কালচে হয়ে রয়েছে। প্রাথমিকভাবে আমরা ধারণা করছি, কেউ তাকে হত্যার পর বস্তাবন্দি করে মরদেহ ওই পরিত্যক্ত বাড়িতে ফেলে রেখে গেছে।’

ওসি আরো জানান, শিশুটিকে কে বা কারা এভাবে হত্যা করেছে তা এখনো (শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টা পর্যন্ত)  নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তার পরিবার কাউকে সন্দেহ করছে কি না, তাও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

নিহত শিশুটির মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কুড়িগ্রামের মর্গে পাঠানো হবে বলে জানান ওসি।

বাংলা/সিকেএস/এসএ/

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0975 seconds.