• বিনোদন ডেস্ক
  • ১৭ এপ্রিল ২০২১ ১০:১৮:১৫
  • ১৭ এপ্রিল ২০২১ ১০:২০:৩৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

আপনার স্বপ্নের ছবিটা বানানো হলো না: ফাহমিদা নবী

অভিনেত্রী সারাহ বেগম কবরী ও কণ্ঠশিল্পী ফাহমিদা নবী।

বাংলা সিনেমার কিংবদন্তি অভিনেত্রী সারাহ বেগম কবরীর মৃত্যুতে বিনোদনসংশ্লিষ্ট থেকে দর্শক সবার মাঝে বইছে শোক। কবরীর সাথে নিজেদের নানা স্মৃতির কথা স্মরণ করে সামাজিক মাধ্যমে শোক প্রকাশ করছেন নানা শ্রেণিপেশার মানুষ। কবরীর মৃত্যুর শোকে সামজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আবেগঘন স্ট্যাটাস লিখেছেন কণ্ঠশিল্পী ফাহমিদা নবী।

তিনি লিখেছেন, ‘আজ আর কোনো ছবি নয়, মনের ভেতর থাকুক সেই স্মৃতি, যে স্মৃতি অমলিন। কিন্তু এই ছবিটাতে ওনাকে একজন সংগ্রামী, কষ্টকে জয় করা এবং আবার স্বপ্ন দেখবার প্রত্যয়ে নিজেকে তৈরি করবার এক নতুন সাহসী নারীকে দেখলাম, মনে হলো ওনাকে নিয়ে লিখে কিছুটা হারানোর বেদনা ভুলি....! মিষ্টি মেয়ে খ্যাত চিত্রনায়িকা কবরী চিরনিদ্রায় চলেই গেলেন! মনে হচ্ছে অনেক বৃষ্টি হোক, ঝড় হোক ঝরে যাক অব্যক্ত বেদনা এই ভোর রাতে!’

এই কণ্ঠশিল্পী লিখেছেন, ‘মৃত্যু যার যখন হবে, তার তখনই চলে যেতে হবে। এ নিয়ে আর কিছু বলব না। পবিত্র মাসে চলে গেলেন.. সেটাই ভালো হলো। আব্বার কথা মনে পড়ছে..... কাঁদতে পারি না আর.........!’

স্ট্যাটাসের সঙ্গে একটি ছবি জুড়ে দিয়ে ফাহমিদা নবী লিখেছেন, ‘কবরী আন্টিকে আমার বকুল ফুল মনে হলো। জানি না কেন! বকুল ফুলকে খুব দুঃখী ফুল মনে হয় সেই ছোটবেলা থেকে। যখনই কুড়াতাম, তখনি মনে হতো, এই ফুল তো ছেঁড়া যায় না, ঝরে ঝরে পড়ে ,বৃষ্টি ফোটার মতো। বোধহয় কাঁদে আর সুখ বিলায়! শুকায় যায় কিন্তু গন্ধ ছড়াতেই থাকে আজীবন কি আশ্চর্য! তাই বকুল ফুল অন্যরকম প্রিয় দামি সংগ্রামী ফুল আমার কাছে। যে দুঃখী, সেই তো সংগ্রামী কষ্টের চোখই তো, এতো মিষ্টি হাসি বহন করতে পারে! আমার কেন যেন তাই মনে হয়েছে, তার এই স্থিরচিত্রটি দেখে। অনেক যুদ্ধ করেছেন নিজের সঙ্গেই নিজেই বোধহয়! অনেক ক্লান্ত ছিলেন। অনেক বেদনাকে ছাপিয়ে আবার হাঁটতে পথ খুঁজেছিলেন হয়তো! আপনার স্বপ্নের ছবিটা বানানো হলো না! থাক, চির নিদ্রায় আপনার আত্মার শান্তি হোক।’

‘আপনার জন্য বকুল ফুলের ভালোবাসা। আল্লাহ আপনাকে জান্নাত দান করুন। আমিন।’

এর আগে গত ৫ এপ্রিল ক‌রোনা পজিটিভ কবরীকে কুর্মিটোলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শারীরিক অবস্থার ক্রমাগত অবনতি হলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সহযোগিতায় গত ৮ এপ্রিল তাকে শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানেই শুক্রবার রাত ১২টা ২০মিনিটে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন সারাহ বেগম কবরী।

 

 

 

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

ফাহমিদা নবী কবরী

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0765 seconds.