• বিদেশ ডেস্ক
  • ১০ মে ২০২১ ১৪:২৬:১৬
  • ১০ মে ২০২১ ১৪:২৬:১৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

আল-আকসায় কদরের রাতে সংঘর্ষ; ইসরায়েলকে 'সন্ত্রাসী রাষ্ট্র' বললেন এরদোয়ান

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট তাইয়িপ এরদোয়ান। ছবি- সংগৃহীত।

পবিত্র শবেকদরের রাতে গত শনিবার জেরুজালেমে ইসরায়েলি বাহিনীর সঙ্গে ফিলিস্তিনিদের সংঘর্ষ হয়েছে। এতে নারী-শিশুসহ অন্তত ৯০ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে ফিলিস্তিনের রেড ক্রিসেন্ট। এর আগের দিন জুমাতুল বিদাতেও সংঘর্ষে ২০৫ ফিলিস্তিনি আহত হয়েছিল বলে জানিয়েছে আলজাজিরা।

এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট তাইয়িপ এরদোয়ান। শনিবার তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় এক অনুষ্ঠানে এরদোয়ান ইসরাইলের এমন জঘন্য কাজের তীব্র নিন্দা জানান। তিনি ইসরাইলকে ‘নিষ্ঠুর ও সন্ত্রসী রাষ্ট্র’ হিসেবে ঘোষণা করেন।

এরদোয়ান বলেন, ‘নিষ্ঠুর ইসরায়েল ও সন্ত্রাসী রাষ্ট্র ইসরায়েল নির্দয় এবং অনৈতিকভাবে জেরুজালেমে মুসলিমদের আক্রমণ করছে।’

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, ‘তুরস্ক অবিলম্বে জাতিসংঘ, ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা ও সব প্রাসঙ্গিক প্রতিষ্ঠানকে পদক্ষেপ নিতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।’

এর আগে শুক্রবার জেরুজালেমের পুরানো শহরাঞ্চল আল জাররাহ থেকে কয়েকটি ফিলিস্তিনি পরিবারকে ইহুদিবাদি দখলদারেরা উচ্ছেদ করবে—এমন খবরে উত্তেজনা ছড়ায়। পরে ইসরায়েলি পুলিশ আল-আকসা মসজিদে মুসল্লিদের ওপর চড়াও হয়। ফিলিস্তিনি রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির জরুরি সেবা বিভাগ ও ইসরায়েলি পুলিশের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

শনিবার শবেকদরের রাতে ইবাদত-বন্দেগির জন্য হাজারো মুসল্লি জেরুজালেমে প্রথম কিবলা আল- আকসা মসজিদে জড়ো হয়। সেখানে তারা পশ্চিম তীরে ইসরায়েলের অবৈধ বসতি স্থাপনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করে। ইসরায়েলি বাহিনী জলকামান, টিয়ার শেল, সাউন্ড গ্রেনেড ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে তাদের সরানোর চেষ্টা করলে সংঘর্ষ হয়। এতে মায়ের সঙ্গে মসজিদে আসা শিশুসহ গুরুতর আহত ১৪ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ইসরায়েলি পুলিশের দাবি, তাদের এক কর্মকর্তা আহত হয়েছেন।

 

 

 

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.1337 seconds.