• বিদেশ ডেস্ক
  • ১৯ মে ২০২১ ১৫:২৬:০৮
  • ১৯ মে ২০২১ ১৫:২৬:০৮
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

গাজায় ২৫ মিনিটে ১২২ বোমা ফেলেছে ইসরায়েল

গাজায় ২৫ মিনিটে ১২২ বোমা ফেলেছে ইসরায়েল

গাজা উপত্যকায় বোমা হামলা অব্যাহত রেখেছে ইসরায়েল। বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে যুদ্ধ বিরতর আহ্বান আসলেও তা শুনছে ইসরায়েল। সবশেষ মঙ্গলবার রাতে গাজায় ২৫ মিনিটে ১২২টি শক্তিশালী বোমা নিক্ষেপ করেছে ইসরায়েল।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা জানিয়েছে, ইসরায়েলের দাবি তারা হামাসের সুড়ঙ্গ ও ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত অন্তত ৬৫টি স্থানে হামলা চালিয়েছে। এই বোমা হামলায় তারা ৬০টি যুদ্ধ বিমান ব্যবহার করেছে। 

সংবাদমাধ্যমটির প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ইসরায়েলি হামলার প্রতিবাদে পাল্টা হামলায় হামাস কিছু ভূগর্ভস্থ সুড়ঙ্গ ব্যবহার করতো। মঙ্গলবার এসব সুড়ঙ্গ লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালায় ইসরায়েলি বাহিনী।

এক সংবাদ সম্মেলনে ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর মুখপাত্র হিদাই জিলম্যান দাবি করেন, মাত্র আধা ঘণ্টায় তারা ৬৫টি স্থানে আঘাত হানতে সক্ষম হয়েছে। হামাসের কয়েক কিলোমিটার দীর্ঘ সুড়ঙ্গ ধ্বংস করতেও সক্ষম হয়েছে ইসরায়েলি বিমান বাহিনী।

তবে তার এই দাবির সত্যতা নিশ্চিত করে এখনও কোনো বার্তা দেয়নি হামাস। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবর, মঙ্গলবার সকাল থেকে গাজার অন্তত ৬৫টি স্থানে বিমান হামলা হয়েছে। গাজার পশ্চিমের আর-রামাল এলাকায় সবচেয়ে বেশি হামলা হয়েছে।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ‘যুদ্ধবিরতির’ আহ্বানের পরও গাজা উপত্যকায় বিমান হামলা অব্যাহত রেখেছে ইসরায়েল। হামলায় নিহত ফিলিস্তিনিদের সংখ্যা বেড়ে ২২০ জনে দাঁড়িয়েছে।

আল জাজিরা জানিয়েছে, অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলের অব্যাহত বিমান হামলা দ্বিতীয় সপ্তাহে গড়িয়েছে। গাজায় ইসরায়েলি হামলায় এখন পর্যন্ত অন্তত ২২০ ফিলিস্তিনি নাগরিক নিহত হয়েছেন, যাদের মধ্যে ৬৩ জন শিশু। এছাড়া আহত হয়েছেন অন্তত দেড় হাজার ফিলিস্তিনি।

অপরদিকে ফিলিস্তিনের ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের পাল্টা হামলায় ইসরায়েলের তিন সেনাসহ ১২ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে দুই শিশু এবং একজন ভারতীয় নারী রয়েছেন। এছাড়া ইসরায়েলের অন্তত ৩০০ জন আহত হয়েছেন।

 

সংশ্লিষ্ট বিষয়

গাজা ফিলিস্তিন ইসরায়েল

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.3025 seconds.