• বিনোদন ডেস্ক
  • ২২ মে ২০২১ ১১:১৫:১৬
  • ২২ মে ২০২১ ১১:১৫:১৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

জয়ার মুখে এখনও ফিলিস্তিনে মানুষের মৃত্যুর হাহাকার

অভিনেত্রী জয়া আহসান।

কার্যকর হয়েছে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের মাঝে যুদ্ধবিরতি। অনেকেই বিজয়োল্লাস করছেন, খুশি হচ্ছে সংঘাত থেমে যাওয়ায়। তবে খুব বেশি খুশি হতে পারেননি জয়া আহসান। দুই বাংলায় তুমুল জনপ্রিয় অভিনেত্রীর মন কাঁদছে এই যুদ্ধে প্রাণ হারানো মানুষদের জন্য।

যুদ্ধ থামার দিনেও তাই তিনি বললেন, ‘যুদ্ধ থেমেছে, ঠিক আছে। কিন্তু যারা মারা গেল, সেই মৃত্যুর কোনো সান্ত্বনা নেই।’

জয়া আরও বলেন, ‘একটা সরকারের সঙ্গে আরেকটা সরকারের সংঘাত থাকতে পারে। একটা কাঠামোর সঙ্গে আরেকটা কাঠামোর বিবাদ থাকতে পারে। প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে প্রতিষ্ঠানের মতবিরোধ হতে পারে। কিন্তু একটা দেশের সাধারণ মানুষ সব সময়ই নিরপরাধ। তারা কেন হতাহতের শিকার হবে? বাস্তুহারা হবে? মারা যাবে? সব সময়ই যুদ্ধের চেয়ে একটা ভালো কার্যকর বিকল্প উপায় থাকে। আমি সর্বাবস্থায় যুদ্ধবিরোধী। কোনো অবস্থায় আমি যুদ্ধ চাই না।’

এর আগে ১৯ মে ইসরায়েলের বোমা হামলার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে জয়া পোস্ট করেন। ইসরায়েলের আক্রমণে ফিলিস্তিনের পরিস্থিতি বর্ণনা করে ফেসবুক পোস্টে লেখেন, ‘ফিলিস্তিনের ছবি দেখছি খবরের কাগজে, টেলিভিশনের পর্দায়। দেখছি আর মনে হচ্ছে নরকের অতলে নেমে যাচ্ছি। ভেঙে ঝুরঝুরে হয়ে যাওয়া বাড়িঘর। তার ওপরে ভাসছে পাকখাওয়া আগুন, আর সারিবাঁধা তরতাজা লাশ। একটু আগেই তারা হাসছিল, খাচ্ছিল, শিশুটি নিচ্ছিল মায়ের আদর। যারা বেঁচে আছে, তারা রক্তমাখা। আগুনের লেলিহান শিখার নিচে ছুটোছুটি করছে। ধ্বংসস্তূপের ঝাঁঝরা ইট সরিয়ে সরিয়ে তারা বের করে আনছে চাপা পড়ে থাকা শিশুদের। ওই কচি বাচ্চাগুলো ডুবে ছিল আলো-বাতাসহীন বিভীষিকার তলায়। এ কোন নরক এই পৃথিবীতে! তাদের অসহায়তা আর হাহাকারে কণ্ঠ বুজে আসে।’

যুদ্ধবিরতি চেয়ে জয়া আরও লিখেছিলেন, ‘এই যুদ্ধ থামুক। শিশুরা খেলা করুক রোদেলা মাঠে, খেজুরগাছের নিচে। নিজের দেশে দেশছাড়া এই মানুষগুলো নিজেদের একচিলতে ঘরে ফিরুক। একজীবনে কি এটা খুব বড় প্রত্যাশা?’

শুক্রবার, ২১ মে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের হামাসের মধ্যে যুদ্ধবিরতি কার্যকর হয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। অনলাইনের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়। তবে যুদ্ধবিরতির পরও ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় আল–আকসা মসজিদ চত্বরে মুসল্লিদের ওপর ইসরায়েলের নিরাপত্তা বাহিনী হামলা চালিয়েছে বলে জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা।

 

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.1070 seconds.