• ০৮ জুলাই ২০২১ ১৩:৫৩:৪৯
  • ০৮ জুলাই ২০২১ ১৩:৫৩:৪৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

‘নলেজ’ ওয়ালা বুদ্ধিজীবী এবং বুদ্ধিজীবীর তালিকা

ছবি : কাকন রেজা

কাকন রেজা :

আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ বললেন, তিনি হাসেন বলে তিনি বুদ্ধিজীবী নন। বুদ্ধিজীবীদের গম্ভীর থাকতে হয়। আমি তার নামের আগে অধ্যাপক যোগ করি না। প্রয়োজন নেই বলেই করি না। উনি আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ, যিনি পদবি’র অধ্যাপক নন, অধ্যাপকের পদবি। 

আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ আমার ভাই। যে ভাইয়ের পরিচয় দিতে ‘কাজিন’ শব্দটি ব্যবহার করা হয়। ভাইয়েরও শ্রেণিবিন্যাস থাকে! অথচ আমরা ভাইয়েরা তাকে শ্রেণিবিন্যাস ছাড়াই বড়ভাই বলি। সেই বড়ভাইকে প্রশ্ন করতে মন চায়, আমি তো কম হাসি, তবে কি বড়ভাই আমাকে বুদ্ধিজীবী বলা যায়? 
সাথে দুই লাইন ফুকো পড়ে যে জন চারপাতা প্রবন্ধ লিখেন, তাকে বুদ্ধিজীবী বলা যায় কিনা, এ প্রশ্নটা হালের বুদ্ধিজীবীদের কাছে রাখাই যায়, কি বলেন? 

একজন বললেন, বুদ্ধিজীবী হতে হলে অনেক পড়াশোনা, মানে বই পড়তে হয়। তিনি বেশ কিছু বইয়ের নামও বলে দিয়েছিলেন। এখন অবশ্য বুদ্ধিজীবীতার ক্লাশ খোলা হয়েছে। ‘সহজে বুদ্ধিজীবী হওয়ার উপায়’ ধরণের বইও বোধহয় বাজারে চলে আসবে। যেভাবে প্রসার হচ্ছে, বাসে-ট্রেনে ‘ইয়ে’ বইয়ের সাথেও বিক্রি হওয়া অসম্ভব কিছু না। 

সেই বুদ্ধিজীবীকে জিজ্ঞেস করতে মন চেয়েছিলো, বই পড়লেই হয়, মানুষ পড়তে হয় না? না, সাহস পাইনি, কারণ তিনি দার্শনিক পদবিধারী বুদ্ধিজীবী। দর্শন এমনিতেও ভালো বুঝি না। প্রশ্ন করে আবার কোন ঝামেলায় জড়াবো। 

তবে লালন কিন্তু মানুষ পড়েই লালন হয়ে ছিলেন। মূলত তিনি লালনই হতে চেয়েছিলের দার্শনিক কিংবা বুদ্ধিজীবী নন। যারা দার্শনিক বা বুদ্ধিজীবী হিসেব স্বীকৃত, তাদের কেউই বোধহয় বুদ্ধিজীবী হওয়ার লক্ষ্য নিয়ে চিন্তা শুরু করেননি।  

চিন্তা বলতে মনে হলো, একজনের নামের পাশে পদবি দেখলাম চিন্তক! একটা গল্প মনে পড়ে গেলো। এক আলসের কাপড়ে আগুন লেগেছে। তিনি ন্যাংটো হয়ে জ্বলন্ত ঘরের বাইরে বেড়িয়ে এলেন। তাকে প্রশ্ন করা হলো, ঘরে আগুন লাগলো টের পাননি। তিনি বললেন, পেয়েছি। তখন বেরিয়ে এলেন না কেন? চিন্তা করছিলাম। আসবাবপত্রে যখন লেগেছে? তখনও চিন্তা করছিলাম। আপনার লুঙ্গিতে যখন আগুন লাগলো? সেই তো চিন্তা করছিলাম। তাহলে যে বেরিয়ে এলেন? তিনি বললেন, আগুন তো প্রায় ‘নলেজ’-এ লেগে গিয়েছিলো, তাই বাধ্য হয়েই বেরিয়ে এলাম। 

এখন ‘নলেজ’ বিষয়ক গল্পটা বলি, তাহলে বিষয়টা আরেকটু খোলাসা হবে। পাত্রীর দুলাভাই ঘটকের কাছে জানতে চাইলেন পাত্রের ‘নলেজ’ মানে জ্ঞানগম্যি কেমন। মূর্খ ঘটক মনে করলেন, ‘নলেজ’ মানে হলো ‘ইয়ে’ আর কী। ঘটক জবাবে বললেন, মুসলমানির সময় দেখেছিলাম, তখন তো ভালোই মনে হয়েছিলো। এখন বোধহয় আরো ভালো হয়েছে। 

আমাদের বুদ্ধিজীবী প্রকল্পেও বোধহয় ভালো ‘নলেজ’ওয়ালা বুদ্ধিজীবী খোঁজা হচ্ছে। তালিকা হচ্ছে। আবার তা কাটাছেড়াও হচ্ছে। তালিকায় থাকা অনেকেই এ ব্যাপারে আপত্তি জানাচ্ছেন। সম্ভবত তারা ‘নলেজ’ এর বিষয়টা বুঝতে পেরে গেছেন।  

কাকন রেজা : কলাম লেখক ও সাংবাদিক। 

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বুদ্ধিজীবী নলেজ

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0936 seconds.