• ২৫ অক্টোবর ২০২১ ২৩:৪৪:১৯
  • ২৫ অক্টোবর ২০২১ ২৩:৪৪:১৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশে চীনা উপস্থিতিকে হুমকি হিসেবে দেখছে ভারত!

ছবি : সংগৃহীত

বাংলাদেশ, মিয়ানমার, পাকিস্তান, শ্রীলংকাসহ দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর উন্নয়ন সহযোগিতার বড় অংশ আসে বিশ্বের অন্যতম পরাশক্তি হিসেবে বিবেচিত চীন থেকে। আফগানিস্তানকেও বড় সহযোগিতার প্রস্তাব দিয়ে রেখেছে দেশটি। বিশেষ করে অবকাঠামো উন্নয়নে দেশটির আগ্রাসী নীতি পেছনে ফেলে দিচ্ছে অন্যদের। এতে কপালে চিন্তার ভাঁজ দেখা যাচ্ছে চীনের প্রতিদ্বন্দ্বী দেশগুলোর রাষ্ট্রপ্রধানসহ সংশ্লিষ্ট কর্তাব্যক্তিদের, যা প্রভাব ফেলছে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের ক্ষেত্রেও। চীনকে ঠেকানোর চেষ্টায় যেমন মরিয়া যুক্তরাষ্ট্র, তেমনি আঞ্চলিক কর্তৃত্ব নিয়ে শঙ্কায় রয়েছে বিশ্বের সর্ববৃহৎ গণতান্ত্রিক দেশ ভারতও।

শনিবার ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় গুয়াহাটিতে আসাম পুলিশ আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ভারতের চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ জেনারেল বিপিন রাওয়াত বলেন, বাংলাদেশ ও মিয়ানমারে চীনের উপস্থিতি ভারতের স্বার্থের সঙ্গে সংগতিপূর্ণ নয়। প্রতিবেশী এ দুটি দেশকে সবচেয়ে বেশি সামরিক সহায়তা দেয় চীন। দেশটি পা রাখার কৌশলগত জায়গা পেতে শ্রীলংকা, নেপাল ও মালদ্বীপেও বিনিয়োগ করছে।

ভারতীয় সংবাদ সংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়ার (পিটিআই) প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, গুয়াহাটির অনুষ্ঠানে বিপিন রাওয়াত বলেন, ইদানীং ভূ-কৌশলগত প্রতিযোগিতা ও এ এলাকায় চীনের যথাযথ নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য ব্যাপক বিনিয়োগ দেখতে পাচ্ছি।

চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ বিপিন রাওয়াত চীনকে লক্ষ করে বলেন, কৌশলগত অস্থিতিশীলতার সর্বব্যাপী বিপদ রয়েছে, যা ভারতের আঞ্চলিক অখণ্ডতা ও কৌশলগত গুরুত্বের ক্ষেত্রে হুমকি তৈরি করবে।

পিটিআইয়ের খবরে বলা হয়, চীনের প্রভাব কমাতে ভারতকে অবশ্যই প্রতিবেশীদের সঙ্গে আরো সম্পর্ক বাড়াতে হবে বলে মনে করেন জেনারেল বিপিন রাওয়াত।

সাবেক এ সেনাপ্রধান পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ছায়াযুদ্ধেরও অভিযোগ আনেন। তিনি বলেন, জম্মু ও কাশ্মীরে যখন শান্তি ও স্থিতিশীলতা বিরাজ করছে, তখন পশ্চিমা শত্রু পাকিস্তান ভয়ের পরিস্থিতি তৈরি করছে কিছু সম্প্রদায়ের মানুষ খুন করে। এ মাসে জম্মু ও কাশ্মীরে অভিবাসী শ্রমিকসহ ১২ বেসামরিক ব্যক্তি খুন হয়েছেন। এজন্য কাশ্মীরে গোয়েন্দা তত্পরতা আরো শক্তিশালী করার কথা বলেন বিপিন রাওয়াত।

জেনারেল বিপিন রাওয়াত মনে করেন, আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতির প্রভাব পড়তে পারে জম্মু ও কাশ্মীরেও। তিনি বলেন, আফগানিস্তানে যা ঘটছে, তার প্রভাব জম্মু ও কাশ্মীরেও পড়তে পারে, এজন্য আমাদের যথাযথ প্রস্তুতি রাখতে হবে। এক্ষেত্রে কড়া নজরদারি ও সীমান্তগুলো সিল করা খুব গুরুত্বপূর্ণ।

জম্মু ও কাশ্মীর প্রসঙ্গে চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ বিপিন রাওয়াতের বক্তব্যের সমালোচনা করেছেন প্রদেশটির সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি।

ভারত ও চীনের মধ্যকার বিরাজমান উত্তেজনার পরিস্থিতির বিষয়ে বিপিন রাওয়াত বলেন, ভারত ও চীনের মধ্যে সন্দেহ ছিল। উত্তেজনা নিরসনে সময় লাগবে। সশস্ত্র বাহিনী এবং বাহিনীর ব্যবস্থাপনার ওপর জনগণের বিশ্বাস ও আস্থা রাখতে হবে। গত বছরের জুনে লাদাখের পূর্বাঞ্চলের গালওয়ান উপত্যকায় চীন ও ভারতীয় সেনাবাহিনীর সদস্যদের সংঘর্ষের পর থেকে দুই দেশের মাঝে উত্তেজনা চলছে। লাদাখের ওই সংঘাতে ভারতের ২০ সৈন্য নিহত হয়। চীন বলছে, গালওয়ানের সেই সংঘাতে তাদের চারজন সৈন্যের প্রাণহানি ঘটেছে।

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বাংলাদেশে চীনা

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0773 seconds.