• বাংলা ডেস্ক
  • ০৮ নভেম্বর ২০২১ ১৬:২৮:৫৯
  • ০৮ নভেম্বর ২০২১ ১৬:২৮:৫৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

অফিসিয়াল ইস্পোর্টস ইভেন্ট হিসেবে স্বীকৃতি পেলো অ্যারিনা অফ ভ্যালোর

ছবি : সংগৃহীত

জনপ্রিয় মোবাইল গেম অ্যারিনা অফ ভ্যালোর-এর এশিয়ান গেমস সংস্করণটি এবারের ২০২২ এশিয়ান গেমস-এ অফিসিয়াল ইস্পোর্টস ইভেন্ট হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। দ্যা অলিম্পিক কাউন্সিল অব এশিয়া (ওসিএ), দ্য হ্যাংঝো ২০২২ এশিয়ান গেমস অর্গানাইজিং কমিটি এবং এশিয়ান ইলেকট্রনিক স্পোর্টস ফেডারেশন (এইএসএফ), গেমটিকে এই স্বীকৃতি প্রদান করে।

এই ইভেন্টের উদ্দেশ্যে, অ্যারিনা অফ ভ্যালোর একটি কাস্টম সংস্করণ তৈরি করে। এই নতুন সংস্করণে গেমের মূল প্রতিযোগিতামূলক বৈশিষ্ট্যগুলিতে ফোকাস করার জন্য সোশ্যালাইজেশন, কমার্শিয়ালাইজেশন এবং নন-ব্যাটেল সিস্টেমস এর মান কমিয়ে দেওয়া হয়। গেমটির এই এশিয়ান গেমস সংস্করণে বিশ্বজুড়ে অ্যারিনা অফ ভ্যালোর-এর বিভিন্ন সংস্করণের সর্বাধিক জনপ্রিয় এবং সবার পরিচিত হিরোদের দেখতে পাওয়া যাবে।

অ্যারিনা অফ ভ্যালোর টিম বলেন, “অ্যারিনা অফ ভ্যালোর গেমটিতে প্রতিযোগিতা রয়েছে বলেই গেমটি বিশ্বজুড়ে এতো জনপ্রিয়। আর একারণেই আমরা গেম ডেভেলপমেন্ট, ইভেন্ট অপারেশনস, অ্যাথলেট নির্বাচন, প্রশিক্ষণ ব্যবস্থাপনা এবং অ্যান্টি-ডোপিং এর ক্ষেত্রে ব্যাপক সহায়তা প্রদান করতে তৈরি।” তিনি আরও বলেন, “২০১৮ এর এশিয়ান গেমস-এর অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে এশিয়ান গেমসের প্রতিটি দর্শকের কাছে ইস্পোর্টসের রোমাঞ্চ পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে আমরা দ্যা অলিম্পিক কাউন্সিল অব এশিয়া (ওসিএ), দ্য হ্যাংঝো ২০২২ এশিয়ান গেমস অর্গানাইজিং কমিটি এবং এশিয়ান ইলেকট্রনিক স্পোর্টস ফেডারেশন (এইএসএফ) এবং এর অন্যান্য অংশীদারদের  সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করে যাবো।”

অ্যারিনা অফ ভ্যালোর  হলো টিমি স্টুডিওর তৈরিকৃত একটি ট্রেন্ড সেটিং প্রতিযোগিতামূলক ব্যাটেল মোবাইল গেম। টিমি স্টুডিও, একটি গ্লোবাল গেম ডেভেলপমেন্ট এবং অপারেশন টিম এবং টেনসেন্ট গেমসের একটি সহায়ক সংস্থা যারা গত অক্টোবরে বাংলাদেশের বাজারে পদার্পণ করে। গেমটি জাকার্তা-পালেমব্যাং এশিয়ান গেমসে ২০১৮ সালে এবং এশিয়া জুড়ে মোবাইল ইস্পোর্টস প্রতিযোগিতায় প্রদর্শিত হয়েছে। ২০২০ সালে গেমটির ইস্পোর্টস অংশগ্রহণ ৬ মিলিয়ন খেলোয়াড়ে পৌঁছে। পাশাপাশি মেইনল্যান্ড চীনে এর ভিউ ৭৩ বিলিয়নে পৌঁছায়। এছাড়া বিশ্বের অন্যান্য দেশে অ্যারিনা অফ ভ্যালোর ওয়ার্ল্ড কাপ এবং অ্যারিনা অফ ভ্যালোর ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নশিপের মতো প্রধান টুর্নামেন্টসমূহে এর ফ্যানরা ৪০ মিলিয়নেরও বেশি ঘণ্টা স্ট্রিম করেছে।

অ্যারিনা অফ ভ্যালোর গেমটি ১৬টি ভাষায়, ১৭৩টি দেশ এবং অঞ্চলে সহজলভ্য। গেমটি ১৮ টি দেশ এবং অঞ্চলে ডাউনলোড চার্টের শীর্ষ পাঁচ এবং ২৮টি দেশ ও অঞ্চলের গ্রসিং চার্টের শীর্ষ ১০ এ অবস্থান করে। এশিয়ার যেসকল দেশে মোবাইল ফোন প্রধান প্ল্যাটফর্ম, তেমন বেশ কয়েকটি অঞ্চলের শীর্ষ মোবাইল গেম এটি। সেইসাথে গেমটির সেইসব দেশীয় বাজারগুলিতে স্থানীয় জনসংখ্যার অনুপ্রবেশের হার ৬০%।

 

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0598 seconds.