• বাংলা ডেস্ক
  • ১১ এপ্রিল ২০২২ ০৮:৪১:০৩
  • ১১ এপ্রিল ২০২২ ০৮:৪১:০৩
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

‘র‍্যাম’ নিয়ে ভিভোর প্রতারণা!

ছবি : সংগৃহীত

ভার্চুয়াল র‍্যাম ব্যবহার করার নামে প্রতারণা করছে চীনা স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ভিভো। ভার্চুয়াল র‍্যাম বাড়ানোর ফলে বেটার গেমিং পারফরম্যান্স পাওয়া যাবে বলে প্রচারনা করছে ভিভো। যেটা আসলে একধরনের প্রতারণা ছাড়া আর কিছুই না। এতে করে ফোনের দাম বাড়িয়ে ক্রেতার সাথে প্রতারণা করা হচ্ছে।

জানা যায়, প্রতিষ্ঠানটি তাদের ভিভো ওয়াই২১, ভিভো ওয়াই২১টি, ভিভো ভি২৩ই, ভিভো ওয়াই৩৩ এস এবং ভিভো ওয়াই৫৩এস মডেলের ফোনে এ সুবিধা দিচ্ছে। যেমন ভিভো তাদের ভি সিরিজের ভিভো ভি২৩ই ৪জিবি ভার্চুয়াল র‌্যাম ব্যবহার করছে। যেখানে ফোনটির সাথেই রয়েছে ৮ জিবি র‌্যাম। এই ভার্চুয়াল র‌্যাম ব্যবহার করায় ফোনটি তুলনামূলক বেশি দামে বাংলাদেশের বাজারে বিক্রি হচ্ছে, ২৭ হাজার ৯৯০ টাকায়।

স্মাটফোন বিশেষজ্ঞরা বলছে, ভার্চুয়াল র‍্যাম নতুন কোন প্রযুক্তি না এইটা স্মার্টফোন এবং কম্পিউটারের অনেক পুরাতন একটি ফিচার। স্টোরেজ যতবেশি ফাস্টই হোক না কেন তা কখনোই ফিজিক্যাল র‍্যামের মত পারফমেন্স দিতে পারবেন না। ফোনের ভার্চুয়াল র‍্যাম কে কখনোই ফিজিক্যাল র‍্যামের মত ব্যবহার করতে পারবেন না । ফোনের ভার্চুয়াল র‍্যাম ব্যবহারের অনেক সীমাবদ্ধতা আছে ।

এছাড়া ভার্চুয়াল র‍্যামের ক্ষতিকর দিক আছে। কেননা অ্যান্ড্রোয়েড ফোনের যেই স্টোরেজ আছে সেগুলোর লিমিটেড লাইফস্প্যান থাকে। অর্থাৎ একটা নির্দিষ্ট রাইট/রিরাইট করার হার থাকে। ফলে দেখা গেছে, এক্সটেন্ডেড ভার্চুয়াল র‍্যাম কাজে না আসলেও বেশি ব্যবহারের কারণে অতিরিক্ত সোয়াপিং এবং রাইট/রিরাইটের মাধ্যমে ফোনের স্টোরেজ লাইফস্প্যান কমিয়ে দেয় ।

ইসমাইল হোসেন নামের একজন ভিভো গ্রাহক বলেন, আমি ভিভো ভি২৩ই ফোন কিছূ দিন আগে ক্রয় করি । আমি মুলত গেম খেলার জন্য এই ফোনটি ক্রয় করি কারণ তারা জানায় এই ফোনে ৮ গিগাবাইট র‌্যাম রয়েছে, যা এক্সটেন্ডেড করে ৪ গিগাবাইট পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। যার করণে বাজারে থাকা এর থেকে কম দামের ফোন না কিনে এই ফোন কিনি । কিন্তু এই ফোনে এক্সটেন্ডেড ৪ গিগাবাইট র‌্যামের কোন উপকার পাচ্ছিনা ।

সংশ্লিষ্ট বিষয়

ভিভো ভার্চুয়াল র‍্যাম

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.3521 seconds.