• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ২৯ জুন ২০২২ ১৬:২৮:২৩
  • ২৯ জুন ২০২২ ১৬:২৮:২৩
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

স্বামী ফোন না ধরায় শরীরে আগুন, সেই চিকিৎসক মারা গেছেন

ছবি : সংগৃহীত

৬ দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে মারা গেলেন নিজ শরীরে আগুনে দগ্ধ হওয়া চিকিৎসক অদিতি সরকার (৩৫)। বুধবার (২৯ জুন) শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। 

ইনস্টিটিউটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন জানান, বুধবার সকাল ১০টায় বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অদিতি মারা যান। তার শরীরের ৬৫ শতাংশই পুড়ে যায়। এ কারণে সব চেষ্টা করেও বাঁচানো যায়নি। 

ওয়ারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কবির হোসেন বলেন, শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ওয়ারী হেয়ারস্ট্রিটের বাসায় এ ঘটনা ঘটে। এসময় ওই নারী চিকিৎসক ঘরে থাকা হ্যান্ড স্যানিটাইজার বা অ্যালকোহল জাতীয় পদার্থ প্রথমে তার শরীরে ঢেলে দেন। এরপরই আগুনে ঝলসে দেন। তিনি নিজেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় অন্যান্য চিকিৎসকের কাছে একথা বলে গেছেন। তারপরও তদন্ত করছি। তদন্তের পরই এ বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

পুলিশ ও  নিহতের স্বজনদের সঙ্গে আলাপে জানা গেছে, অদিতি স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নবজাতক শিশু বিভাগের রেজিস্টার ছিলেন। তিনি ৩১তম ব্যাচের শিক্ষার্থী। ভালোবেসে তিনি বিয়েও করেন। তার স্বামী  স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সহকারী ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্মরত আছেন। ঘটনার দিন অদিতি স্বামীকে ফোন করেন। কিন্তু ফোনটা স্বামী ধরতে একটু দেরি হওয়ায় ক্ষোভ-আক্রোশ, অভিমানে তিনি আগুন ধরিয়ে দেন।  

নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল (ঢামেক) মর্গে রাখা হয়েছে। তবে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত এখনও এ ঘটনায় কেউ থানায় অভিযোগ করেনি।

সংশ্লিষ্ট বিষয়

চিকিৎসক

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0640 seconds.