• বিনোদন ডেস্ক
  • ১৫ আগস্ট ২০২২ ১২:০৮:৩২
  • ১৫ আগস্ট ২০২২ ১২:০৮:৩২
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

‘ধর্মযুদ্ধ’ বয়কটের ডাক দিতেই ফুঁসে উঠলেন পরিচালক রাজ

ছবি : সংগৃহীত

সোশ্যাল মিডিয়ায় বয়কটের ডাক যেন ট্রেন্ড হয়ে উঠেছে। ভারতীয় বাংলা সিনেমা ‘লাল সিং চাড্ডা’, ‘রক্ষা বন্ধন’-এর মতো সিনেমার পাশাপাশি রাজ চক্রবর্তীর ‘ধর্মযুদ্ধ’ সিনেমাও বয়কটের ডাক দেওয়া হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। এরই তীব্র প্রতিবাদ করলেন পরিচালক। টুইটারে নিন্দুকদের একহাত নিলেন তিনি। 

আধুনিক হয়েছে সমাজ। কিন্তু ধর্মভেদ আর জাতিতত্ত্ব আজও সমাজে বিদ্যমান। ধর্মের নামে চলে রাজনীতি। জাতিতত্ত্বকে সামনে রেখেই শাসন চালায় সুবিধাভোগী মানুষ। এইসব সমস্যাকেই রাজ চক্রবর্তী তুলে এনেছেন ‘ধর্মযুদ্ধ’ ছবিতে। বহুদিনের অপেক্ষার পর গত শুক্রবার ছবিটি সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে। এর মধ্যেই ছবি বয়কটের ডাক দিয়েছে নেটিজেনদের একাংশ। ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের অভিযোগ আনা হয়েছে।

এমনই একটি টুইট শেয়ার করেছেন পরিচালক রাজ। যাতে অভিযোগ করা হয় রাজ চক্রবর্তীর পরিচালিত ‘ধর্মযুদ্ধ’ সিনেমায় গীতা শ্লোক পড়তে পড়তে মানুষের গলা কাটা দেখানো হয়েছে। সিনেমাটিকে হিন্দু ধর্মের বিরোধী বলে বয়কটেরও ডাক দেওয়া হয়। এতেই ফুঁসে ওঠেন রাজ। পরিচালক লেখেন, “ধর্মযুদ্ধ’-এ কোথাও গলা কাটা তো দূরে থাক, এক ফোটা রক্তপাতও দেখানো হয়নি। আর তোমরা সিনেমাটা না দেখেই বয়কটের ডাক দিচ্ছো? তোমরা কী ছাগল না পাগল?”

উল্লেখ্য, রাজের ‘ধর্মযুদ্ধ’ ছবির কেন্দ্রে রয়েছে জবর, রাঘব, শবনম, আম্মি ও মুন্নি নামের পাঁচটি চরিত্র। জবরের চরিত্রে অভিনয় করেছেন সোহম চক্রবর্তী। রাঘবের ভূমিকায় ঋত্বিক চক্রবর্তী। মুন্নি ও শবনমের চরিত্রে অভিনয় করেছেন শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায় এবং পার্ণো মিত্র। আর আম্মির ভূমিকায় অভিনয় করেছেন প্রয়াত কিংবদন্তি স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত। দাঙ্গা নয়, ভালোবাসা, সহিষ্ণুতা ও ধর্মে আঘাত না করে সম্প্রীতির পরিমণ্ডলে বাস করাটাই আদর্শ হওয়া উচিত। ছবির শেষে এই শিক্ষাই পরিচালক রাজ চক্রবর্তী রেখেছেন। 

সংশ্লিষ্ট বিষয়

ধর্মযুদ্ধ

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0803 seconds.