• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৩:৫২:৩৯
  • ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৩:৫২:৩৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে ফের তলব

ছবি : সংগৃহীত

ঢাকায় নিযুক্ত মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত অং কিউ মোয়েকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে। বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম সীমান্তের ওপারে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে গোলাগুলির ঘটনায় রোববার সকালে তাকে তলব করা হয়।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মিয়ানমার অণু বিভাগের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক নাজমুল হুদার দপ্তরে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত অং কিউ মোয়েকে তলব করা হয়। এ নিয়ে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে চারবার তলব করা হলো।

কখনও বাংলাদেশ সীমান্তের ভেতর এসে পড়ছে মিয়ানমারের গোলা, কখনও এ দেশের আকাশসীমায় দেখা যাচ্ছে তাদের হেলিকপ্টার, আকাশ থেকে করা হচ্ছে গুলিবর্ষণ। আর সীমান্তের ওপার থেকে প্রায় প্রতিদিনই ভেসে আসছে গোলাগুলির আওয়াজ। 

তবে গতকাল শুক্রবার মিয়ানমারের মর্টার শেলে নিহত হয়েছেন রোহিঙ্গা যুবক মোহাম্মদ ইকবাল (১৯)। তিনি ঘুমধুম ইউনিয়নের তুমব্রু সীমান্তের জিরো পয়েন্টের রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবিরের বাসিন্দা মনির হোসেনের ছেলে। আহত হয়েছেন আরও অন্তত ছয়জন। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন শূন্যরেখার রোহিঙ্গা নেতা দিল মোহাম্মদ।

এদিকে, বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের ৩৪ নম্বর পিলার সংলগ্ন তুমব্রু জিরো পয়েন্টের ওপারে দুই দফায় আটটি বোমা নিক্ষেপ করা হয়েছে। গত শুক্রবার রাত ১০টা থেকে সাড়ে ১০টার মধ্যে বিমান থেকে এ বোমাগুলো নিক্ষেপ করা হয়েছে।

এর মধ্যে রাত ১০টায় প্রথম দফায় তিনটি এবং সাড়ে ১০টায় পাঁচটি বোমা নিক্ষেপ করা হয়। তবে রাতের অন্ধকারে দুর্গম এলাকা হওয়ায় হতাহতের ঘটনা ঘটেছে কিনা তা জানা যায়নি। সীমান্ত এলাকার স্থানীয় বাসিন্দারা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বেশ কিছুদিন ধরে এমন ঘটনায় আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন সীমান্তবর্তী বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি ও কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার ৫০ হাজার মানুষ। এরই মধ্যে রাত ৮টার দিকে নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম ইউনিয়নের তুমব্রু বাজারের পাশে আবারও চারটি মর্টার শেল এসে পড়েছে।

গত শুক্রবার বিকেলে ঘুমধুম ইউনিয়নের হেডম্যানপাড়ায় বাংলাদেশের ৩০ ফুট ভেতরে মাইন বিস্ফোরণে গুরুতর আহত হন অথোয়াইং তংচঙ্গা। তিনি কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। স্থানীয়দের ধারণা, সীমান্তে পুঁতে রাখা এমন আরও কয়েকটি মাইন এখনও অবিস্ফোরিত রয়ে গেছে।

এর আগে ৩ সেপ্টেম্বর যুদ্ধবিমান থেকে ছোড়া দুটি এবং ২৮ আগস্ট আরও দুটি অবিস্ফোরিত মর্টার শেল তুমব্রু সীমান্তে এসে পড়ে। তবে ওই সময় কেউ আহত হননি।

সংশ্লিষ্ট বিষয়

মিয়ানমার রাষ্ট্রদূত

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0704 seconds.