• ক্রীড়া ডেস্ক
  • ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ ২৩:৩২:২৯
  • ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ ২৩:৩২:২৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

শুরু হচ্ছে রোহিত-কোহলিদের শেষ পরীক্ষা-নিরীক্ষা!

রোহিত শর্মা। ছবি : সংগৃহীত

বিশ্বকাপের বাকি এক মাসের কম। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে বিশ্বকাপে ভালো ফলাফলের আশায় এশিয়া কাপে সুপার ফোর থেকে বিদায় রোহিত শর্মার দল। এশিয়া কাপে করা ভুলগুলো যেন বিশ্বকাপে না হয় সেটির জন্য প্লেয়ারদের নতুন কিছুর চেষ্টা চালাতে বলেছেন রোহিত।

এশিয়া কাপের ব্যর্থতার পর দেশে ফিরে ভারতের বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণা করেছে বিসিসিআই। স্কোয়াড নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই, হচ্ছে নানান আলোচনা সমালোচনা। বিশ্বকাপে ভালো করতে বিসিসিআই চালিয়েছে নানান পরীক্ষা। এবার ঘরের মাঠে অনুষ্ঠেয় অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজেও পরীক্ষা - নিরীক্ষা চালাতে চান রোহিত। মূলত বিশ্বকাপ প্লেয়াররা পুরোপুরি প্রস্তুত হয়ে যেন অংশ নিতে পারে।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের আগে গতকাল (রবিবার) সংবাদ সম্মেলনে এই বিষয়ে রোহিত জানান, ‘দলে সবার মধ্যে একটা আস্থা আনতে চেয়েছিলাম। তাই দুটো সিরিজের দলই একসঙ্গে ঘোষণা করা হয়েছে, যাতে কেউ বাদ পড়ার ভয়ে না থাকে। এশিয়া কাপেও আমাদের প্রায় একই দল ছিল। কী ভাবে, কোন উপায়ে ম্যাচ জিততে পারি, তা নিয়ে আমরা আরও ভাবনাচিন্তা করব। মাঠে নেমে নতুন ভাবে যাতে নিজেদের প্রকাশ করতে পারি, সেই চেষ্টা চালু থাকবে। নতুন জিনিস চেষ্টা করতে কোনও অসুবিধা নেই। দলকে সাহায্য করতে চাইলে নতুন কিছু চেষ্টা করাই যায়।’

অধিনায়ক রোহিত তার ছেলেদের পক্ষে যেন একহাত নিলেন। জানিয়ে দিলেন কোনো বোলার চাইলেই প্রথম বলেই ইয়র্কার বা বাউন্সার দিতে পারে, এতে অসুবিধা নেই। ব্যাটারদেরও জুগিয়েছেন ভরসা। জানিয়েছেন, ‘দলের ক্রিকেটাররা যাতে আরও নিজেদের প্রকাশ করতে পারে, সেই চেষ্টা আমরা করব। কেউ রিভার্স সুইপে অভ্যস্ত না-ও হতে পারে, তাই বলে সে রিভার্স সুইপ খেলবে না এমনটা না, তিনি চেষ্টা করতেই পারেন। কেউ চাইলে তার নিজের মতো যেকোনো শট খেলতে পারে। বিশ্বকাপে খেলতে নামলে সব প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে। বোলাররাও ইয়র্কার বা বাউন্সার দিয়ে নিজেদের স্পেল শুরু করতে পারে।’

সংবাদ সম্মেলনে রোহিত যেন সতীর্থদের চিন্তামুক্ত করেছেন অনেকটা। কেননা, দলের অধিনায়ক যখন সবাইকে তাদের স্বাভাবিক খেলা খেলতে উন্মুক্ত করেন তখন কনফিডেন্স বেড়ে যায় সেটি বলার অপেক্ষা রাখে না।

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.2668 seconds.