• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২ ২৩:৩৩:৫০
  • ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২ ২৩:৩৩:৫০
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

সংগ্রামী নারীর গল্প নিয়ে লেখা ‘কল সেন্টারের অপরাজিতা’

ছবি : সংগৃহীত

কল সেন্টারকর্মীদের নিয়ে লেখা ‘কল সেন্টারের অপরাজিতা’ উপন্যাসে সমাজে নতুন পেশার একজন নারীর ভেতর ও বাইরের বাস্তবতা তুলে ধরা হয়েছে। তথ্যপ্রযুক্তি খাতে যারা শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন তাদের এই ধরনের সংগ্রামী গল্প তুলে আনতে তথ্যপ্রযুক্তি সাংবাদিকদের ভূমিকা অনস্বীকার্য।  

গতকাল সোমবার রাজধানীর রেইনি রুফ রেস্টুরেন্টে লেখক রাহিতুল ইসলামের উপন্যাস 'কল সেন্টারের অপরাজিতা' নিয়ে এক আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। 

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রযুক্তি লেখক এবং তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তিবিষয়ক সাংবাদিকরা। তাদের আলোচনায় উঠে এসেছে রাহিতুল ইসলাম ও তার উপন্যাসের নানা বিষয়।

তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি খাতে কর্মরত গণমাধ্যমকর্মীদের সংগঠন বাংলাদেশ আইসিটি জার্নালিস্ট ফোরামের (বিআইজেএফ) নবনির্বাচিত সহ-সভাপতি ভূইয়া ইনাম লেনিন বলেন, ‘তথ্যপ্রযুক্তি খাতকে সহজভাবে তুলে ধরা হচ্ছে সারা দেশে, যে কাজটি লেখক রাহিতুল ইসলাম করছেন। তার লেখার গাঁথুনী তথ্যপ্রযুক্তি খাতকে আরও গুরুত্বপূর্ণ করে তুলছে। কল সেন্টারের অপরাজিতা একটি দারুণ উপন্যাস। এটি সমাজে ভালো বার্তা দেবে।’

তথ্যপ্রযুক্তি সাংবাদিক জাকির বলেন, 'রাহিতুল ইসলাম স্পট সাংবাদিকতা করে। সে গল্প খুঁজতে কখনো বনে, আবার কখনো প্রত্যন্ত গ্রামে ছুটে বেড়ায়। তার যে অনুপ্রেরণার গল্পগুলো সংবাদমাধ্যমে সাড়া ফেলছে, সেটিকেই সুন্দরভাবে আবার বইয়ে পরিণত করছে। রাহিতুল ইসলামকে ধন্যবাদ জানাব, কারন তিনি এই সেক্টরকে ভালোবাসেন এবং পুরো সময়টি তথ্যপ্রযুক্তি খাতে ব্যয় করছেন।'

লেখক ও তথ্যপ্রযুক্তি সাংবাদিক রাহিতুল ইসলাম বলেন, 'আমি চেষ্টা করছি তথ্যপ্রযুক্তি খাতকে সহজ সরল ভাষায় মানুষের কাছে পৌঁছে দেবার।'

অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রথমা ডটকমের প্রধান ও লেখক রাসেল রায়হান বলেন, 'বর্তমান বিশ্বে সম্ভাবনাময় পেশাগুলোর মধ্যে কল সেন্টার সার্ভিস অন্যতম। কিন্তু বাংলাদেশে এখনো এই খাতের পেশাজীবীরা যথার্থ স্বীকৃতি পায়নি। রাহিতুলের এ উপন্যাস এই স্বীকৃতির পথকে সুগম করে দেবে।'

উল্লেখ্য, এ বছর একুশে বইমেলা উপলক্ষে তরুণ সাহিত্যিক ও প্রযুক্তিবিষয়ক সাংবাদিক রাহিতুল ইসলামের ‘কল সেন্টারের অপরাজিতা’ উপন্যাসটি প্রকাশ করেছে প্রথমা প্রকাশন। এতে উঠে এসেছে কল সেন্টার–কর্মীদের পেশাগত জীবনের সংগ্রাম এবং সব ধরনের প্রতিকূলতা পেরিয়ে দায়িত্ব পালন করে যাওয়ার অদম্য প্রত্যয়ের গল্প।

সংশ্লিষ্ট বিষয়

‘কল সেন্টারের অপরাজিতা

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.2777 seconds.