• ক্রীড়া ডেস্ক
  • ২৪ জানুয়ারি ২০২৩ ১৭:৩২:৪৬
  • ২৪ জানুয়ারি ২০২৩ ১৭:৩২:৪৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে সাকিবদের হারিয়ে জয় পেল মাশরাফিরা

মাশরাফিদের উল্লাস। ছবি: সংগৃহীত

 

শুরুর ধাক্কা কাটিয়ে শান্তর ৮৯ ও মরিসের ৪০ রানে ভর করে ১৭৩ রানের পুঁজি পাওয়া সিলেট আমির ও রাজার শেষ দুই ওভারের রাজসিক পারফরম্যান্সে বরিশালকে ২ রানে হারিয়ে চলতি আসরের ষষ্ঠ জয়ের দেখা পেয়েছে।

আজ মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) মিরপুরে দুপুর দেড়টায় মুখোমুখি হয় টুর্নামেন্টের হট ফেভারিট দুই দল ফরচুন বরিশাল ও সিলেট স্ট্রাইকার্স। টস ভাগ্যে সাকিবের জয় হলে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানা মাশরাফিকে। সেই সুবাদে ওপেনিংয়ে আসেন জাকির হাসান ও নাজমুল শান্ত। দলীয় প্রথম ওভারে ১০ রান নিয়ে সিলেটকে ভালো শুরু আভাস দিলেও দ্বিতীয় ওভারে বদলে যায় দৃশ্যপট। এক ওভারে জাকির, তৌহিদ ও মুশফিককে ফিরিয়ে চাপে পেলেন সিলেটকে। মাত্র ১৫ রানেই ৩ উইকেট হারায় সিলেট। 

সেখান থেকে নাজমুল শান্তর সাথে জুটি বাঁধেন টম মরিস। নিজের অভিষেক বিপিএল ম্যাচেই দারুণ ব্যাটিং উপহার দেন তিনি। শুরুর ধাক্কা কাটিয়ে নাজমুল শান্ত ও মরিস সিলেটকে দেখায় লড়াইয়ের স্বপ্ন। দুইজনের দারুণ ব্যাটিংয়ে জমে ওঠা ম্যাচে ৪০ রানে মরিস ফিরলে ভাঙে ৮১ রানের জুটি। মরিস ফিরলেও অসাধারণ ব্যাটিং উপহার দিতে থাকেন শান্ত ও থিসারা পেরেরা। শেষ মূহুর্তে থিসারা ২১ রানে ফিরলেও ৬৬ বলে ১১ চার ও ১ ছক্কায় ৮৯ রান করে দলকে ১৭৩ রানের পুঁজি এনে দেন শান্ত

সিলেটের দেওয়া ১৭৪ রানকে সামনে রেখে ব্যাটিংয়ে নামেন ইব্রাহিম জাদরান ও সাইফ হাসান। বড় লক্ষ্যে খেলতে নেমো আগ্রাসী ব্যাটিং উপহার দিতে থাকেন সাইফ। কিন্তু ইনিংস বড় করতে ব্যর্থ হোন, ফিরে যায় ১৯ বলে ৩১ রান করেই। এরপর এনামুল হক বিজয় ৮ বলে ৪ রান করে ফিরলে চাপে পড়ে বরিশাল। সেখান থেকে ইব্রাহিমকে সাথে নিয়ে জুটি বাঁধেন সাকিব আল হাসান। 

সাকিবের আগমনে যেনো প্রাণ ফিরে পায় ইব্রাহিম, জ্বলে ওঠেন আগ্রাসী ভূমিকায়। সাকিবও শুরু থেকেই করতে থাকেন আগ্রাসী ব্যাটিং। দুই জনের আগ্রাসী ব্যাটিং ঘুরে দাঁড়ায় বরিশাল। তৃতীয় উইকেট জুটিতে ৩০ বলে ৫০ রান তুলে বরিশালকে জয়ের স্বপ্ন দেখান দুইজন। কিন্তু দলীয় ১০৭ রানে ব্যক্তিগত ৪২ রানে ইব্রাহিম ফিরলে কিছুটা চাপে পড়ে বরিশাল। সেই চাপ আরও বেড়ে যায় রাজার দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে সাকিবের বিদায়ে। শেষ ৩০ বলে জয়ের জন্য বরিশালের প্রয়োজন দাঁড়ায় ৬৩ রান। সেখান থেকে মাশরাফির এক ওভারে ২১ রান নিলে জমে ওঠে ম্যাচ। কিন্তু আমিরের তৃতীয় ও দলীয় ১৭ তম ওভারে মাত্র ১ রান আসলে আবারও জমে ওঠে ম্যাচ। সেখান থেকে শেষ ওভারে ১৫ রান প্রয়োজন দাঁড়ালে রাজার ওভারে ১২ রান নিলে ২ রানের জয় পায় সিলেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

সিলেট ১৭৩/৫ (২০ ওভার)
শান্ত ৮৯*, মরিস ৪০, পেরেরা ২১
ওয়াসিম ৩৪/৩, সাকিব ১১/১

বরিশাল ১৭১/৭ (২০ ওভার)
ইব্রাহিম ৪২, সাইফ ৩১, সাকিব ২৯
রাজা ৪১/৩, আমির ২৪/২

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.1629 seconds.