• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ১৯:২৩:৩০
  • ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ১৯:২৩:৩০
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

টিকটক-জাগো ফাউন্ডেশন আয়োজন করছে ‘ইয়ুথ এমপাওয়ারমেন্ট সামিট’

ছবি : সংগৃহীত

দেশের অন্যতম দাতব্য ও যুব সংস্থা জাগো ফাউন্ডেশনের সহযোগী হিসেবে বৈশ্বিক শীর্ষ শর্ট ভিডিও প্ল্যাটফর্ম টিকটক আয়োজন করছে ‘ইয়ুথ এমপাওয়ারমেন্ট সামিট-২০২৩’। জাগো ফাউন্ডেশনের এ উদ্যোগের অন্যতম লক্ষ্য বাংলাদেশের তরুণদের তাদের নিজেদের বুঝতে শেখা এবং তাদের মেধা ও জ্ঞান ব্যবহার করে সুন্দর ভবিষ্যৎ এবং সে সঙ্গে একটি সুন্দর বিশ্ব গড়তে তুলতে নিজেদের ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করা। 

এই উদ্যোগের অংশীদার হিসেবে, টিকটক ডিজিটাল নিরাপত্তা, ইতিবাচক কনটেন্ট তৈরি এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের দায়িত্বশীল ব্যবহারকে গুরুত্ব দিয়ে একটি বিশেষ সেশনের আয়োজন করেছে। ‘বি সাইবার কুল’ সেশনটির ডিজাইন করা হয়েছিল একটি কর্মশালা হিসেবে; যেখানে অংশগ্রহণকারীরা ইন্টার‍্যাক্টিভ কাজকর্ম ও আলোচনার মাধ্যমে বিষয়টি নিয়ে অনেককিছু শিখেছে।

এই সেশনে সারা দেশ থেকে ৫০০ জনের বেশি যুব নেতা অংশ নেন, যারা সবাই জাগো ফাউন্ডেশনের একটি প্রোগ্রাম ভলান্টিয়ার ফর বাংলাদেশ (ভিবিডি)-এর সদস্য। এই যুব নেতারা সক্রিয়ভাবে কমিউনিটির উন্নয়নে জড়িত এবং ইন্টারনেট সেফটি এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের দায়িত্বশীল ব্যবহার সম্পর্কে জানতে আগ্রাহী। 
১ ঘণ্টা ১৫ মিনিট দীর্ঘ এই সেশনটি পরিচালনা করেন ইউএনডিপি বাংলাদেশের হেড অব কমিউনিকেশন মো. আব্দুল কাইয়ুম। তিনি সেখানে টিকটকের কমিউনিটি গাইডলাইন সম্পর্কে পুঙ্খানুপুঙ্খ ওভারভিউ দেন এবং সেই সঙ্গে প্ল্যাটফর্মটির ইতিবাচক ব্যবহার ও ইতিবাচক কনটেন্ট তৈরির বিষয়ে আলোচনা করেন। রাফসান শাবাব জনপ্রিয় ক্রিয়েটর এবং উপস্থাপক। তিনি মঞ্চে তার বাস্তব জীবনে ঘটে যাওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তার বিভিন্ন বিষয় এবং কনটেন্ট তৈরির বিষয়গুলো শেয়ার করেন। এই ইন্টার‍্যাক্টিভ সেশনের মাধ্যমে ইতিবাচক কনটেন্ট তৈরি এবং সেটির প্রভাব নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি অংশগ্রহণকারীদের এমন কনটেন্ট তৈরির একটি প্রতিযোগিতারও আয়োজন করা হয়। 

গত বছর টিকটক এবং জাগো ফাউন্ডেশন যৌথভাবে একটি ক্যাম্পেইন শুরু করে ‘সাবধানে অনলাইন’ নামে। এর উদ্দেশ্য ছিল জিডিটাল সেফটি, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ইতিবাচক ব্যবহার এবং বাংলাদেশের তরুণদের জন্য ইতিবাচক কনটেন্ট তৈরি সম্পর্কে জানানো। এখন পর্যন্ত এর অংশ হিসেবে সারা দেশে ১৪টি কর্মশালা আয়োজন করা হয়েছে, যাতে যুক্ত করা হয়েছে তরুণদের। ক্যাম্পেইনের সঙ্গে যুক্ত টিকটক ব্যবহারকারীদের তৈরি কনটেন্ট ৬ লাখ ৬৮ হাজারের বেশিবার দেখা হয়েছে।    

ইভেন্টে ‘নিরাপদ ইন্টারনেট মাস’ চলাকালীন ডিজিটাল নিরাপত্তার বিষয়টি প্ল্যাটফর্মের বিশ্বব্যাপী সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইনের একটি অংশ। এ বছর বিশ্বব্যাপী ‘একসাথে আরও ভালো ইন্টারনেটের জন্য’ থিম নিয়ে টিকটক দ্বিতীয় পর্যায়ে ‘সাবধানে অনলাইন’ ক্যাম্পেইন করতে জাগো ফাউন্ডেশনের সঙ্গে তাদের অংশীদারিত্বের সময় বাড়িয়েছে। এই উদ্যোগের অংশ হিসেবে, দুই প্রতিষ্ঠান সারা দেশে আরও তরুণদের কাছে পৌঁছাতে এবং তাদের ডিজিটাল নিরাপত্তার বিষয়ে শিক্ষিত করতে তাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে।

এই কনটেন্ট প্রতিযোগিতার সমাপনীর জন্য সম্মেলনের তৃতীয় দিন ১৯ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় অধিবেশন অনুষ্ঠিত হবে।

সংশ্লিষ্ট বিষয়

টিকটক

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.1374 seconds.